বুধবার ৩০ নভেম্বর ২০২২, অগ্রাহায়ণ ১৬ ১৪২৯, ০৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

হিজরতের সময় যে গুহায় আশ্রয় নিয়েছিলেন নবী করিম সা.

সৌদি আরবের মক্কা থেকে: জাবালে সাওর বা গারে সাওর। এই সাওর পর্বতের একটি গুহায় হযরত রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এবং হযরত আবু বকর সিদ্দিক (রা.) মদিনা মোনাওয়ারায় হিজরতের সময় আত্মগোপন করেছিলেন।

মঙ্গলবার, ১ নভেম্বর ২০২২, ১৪:৩০

রাগ নিয়ন্ত্রণে মহানবী (সা.)-এর চার আমল

রাগের বশে কারো ক্ষতি করা বীরের কাজ নয়।  বরং বীর হলো সেই ব্যক্তি যে কঠিন রাগের সময় নিজেকে নিয়ন্ত্রণ রাখে। রাসুল (সা.) বলেছেন, ‘সেই ব্যক্তি শক্তিশালী নয় যে কুস্তি লড়ে অন্যকে ধরাশায়ী করে।  বরং সেই ব্যক্তি প্রকৃত শক্তিশালী যে রাগের সময় নিজেকে সংবরণ করতে পারে। ’ (বুখারি, হাদিস : ৬৮০৯)

সোমবার, ৩১ অক্টোবর ২০২২, ২০:৪৩

উম্মতের নাজাতই ছিল যাঁর ধ্যানজ্ঞান

আল্লাহর বন্ধু হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালাম, সঙ্গে পুত্র ইসমাঈল। কাবা শরীফ নির্মাণ সমাপ্ত করলেন, দুজনে মিলে। হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালামের হৃদয়-সমুদ্রে তরঙ্গ এল। আরজি পেশ করলেন ঘরের মালিকের নিকট- رَبَّنَا تَقَبَّلْ مِنَّا اِنَّكَ اَنْتَ السَّمِیْعُ الْعَلِیْمُ رَبَّنَا وَ اجْعَلْنَا مُسْلِمَیْنِ لَكَ وَ مِنْ ذُرِّیَّتِنَاۤ اُمَّةً مُّسْلِمَةً لَّكَ وَ اَرِنَا مَنَاسِكَنَا وَ تُبْ عَلَیْنَا اِنَّكَ اَنْتَ التَّوَّابُ الرَّحِیْمُ رَبَّنَا وَ ابْعَثْ فِیْهِمْ رَسُوْلًا مِّنْهُمْ یَتْلُوْا عَلَیْهِمْ اٰیٰتِكَ وَ یُعَلِّمُهُمُ الْكِتٰبَ وَ الْحِكْمَةَ وَ یُزَكِّیْهِمْ اِنَّكَ اَنْتَ الْعَزِیْزُ الْحَكِیْمُ۠. আয় আমাদের রব! আমাদের পক্ষ থেকে (এই ক্ষুদ্র নিবেদনটুকু) কবুল করুন। নিঃসন্দেহে আপনিই মহান শ্রোতা এবং সর্বজ্ঞ।

রোববার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২৩:৪১

আল্লাহ তা`লা কেন মিরাজে নিয়েছিলেন রাসূল সা: কে?

তাৎপর্য: বিশ্বনবির ভরাক্রান্ত, ব্যতিত হৃদয়কে চরম শান্তনা দেওয়ার জন্য। রাসূল (সা:) নবুওয়ত লাভ কারর পর ইসলামের দাওয়াত দেয়ার কাজ শুরু করেন। বাধা সৃষ্টি করে আবু জেহেল ও তার মি‏ত্ররা।

সোমবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ১৪:১২
মিরাজের তাৎপর্য: ২য় পর্ব

দ্বিতীয় তাৎপর্য: দুনিয়ার সকল নাস্তিকদেরকে দাঁতভাঙ্গা জবাব দেওয়ার জন্য। নবি সাল্লল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম স্বচক্ষে জান্নাত-জাহান্নাম দেখে এসেছেন।

সোমবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ১৪:০৬
বিদায় হজ্বের খুতবা: শাশ্বত মানবিক আদর্শের পয়গাম

ইসলামের মহান শিক্ষা নিয়ে পৃথিবীর বুকে আগমন করলেন আখেরী নবী মুহাম্মাদুর রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম। আপন কর্ম ও বক্তব্যের মাধ্যমে বিশ্ববাসীর সামনে পেশ করে গেলেন একটি সর্বজনীন জীবনাদর্শ। মানুষের জীবনকে সুন্দর, সুশীতল আদর্শিক স্রোতে ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে অকাতরে বিলিয়ে গেলেন পিতৃসুলভ স্নেহ-মমতা ও সৌহার্দ্য-ভালোবাসা। একজন মানুষকে ‘মানুষ’ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে, খোদার একজন বান্দাকে ‘বান্দা’র মহিমায় উদ্ভাসিত করতে তিনি উৎসর্গ করলেন তাঁর জীবনের প্রতিটি নিঃশ্বাস, প্রতিটি উচ্চারণ। হৃদয় দিয়ে মানুষকে ভালোবাসলেন। ভালোবাসা দিয়ে মানুষ গড়লেন।

রোববার, ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ১৪:৫৯

নবী-রাসূল প্রেরণের উদ্দেশ্য

আল্লাহ তায়ালা নবী রাসুলদের কেন পাঠালেন? এই প্রশ্নের উত্তরে ছোটবেলায় ইসলাম শিক্ষা বইয়ে পড়েছি- ‘যুগে যুগে পথভোলা মানুষকে পথ দেখানোর জন্য আল্লাহ তায়ালা নবী রাসুল পাঠিয়েছেন’। কথাটা ঠিকই আছে। কিন্তু এতে নবী রাসুলদেরকে ধর্মপ্রচারকের বেশি মর্যাদা দেয়া হয় না। বিশেষ করে শেষ নবী মুহাম্মাদ (সাঃ) এর ব্যাপারে এই কথাটা যথেষ্ট নয়। 

রোববার, ২৯ আগস্ট ২০২১, ০৬:৪৪

রাসূল সা: এর অনিন্দ্য সুন্দর বিনয় ও সারল্য

আমাদের প্রিয়নবী মুহাম্মদ (সা) ছিলেন অনন্য চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যে পূর্ণ এক মানুষ। তিনি ছিলেন অনবদ্য বিনয় এবং সারল্যের অধিকারী এক ব্যক্তিত্ব যার কাছ থেকে আমাদের অনেক কিছু শেখার আছে। যদি আমরা তার সুন্নাহ মেনে চলি তাহলে আমরা নিজেদের জীবনযাত্রায় কাঙ্ক্ষিত উন্নতি সাধন করতে পারব। 

শনিবার, ২৮ আগস্ট ২০২১, ১০:২২

ব্যক্তি ও সমাজ গঠনে সীরাতের ভূমিকা

ভূমিকা

এই প্রবন্ধের বিষয়বস্তু দুই ভাগে বিভক্ত। এক. ব্যক্তি গঠন দুই. সমাজ-গঠন। প্রথম ভাগের সম্পর্ক সমাজের প্রতিটি ব্যক্তির সাথে আলাদাভাবে আর দ্বিতীয় ভাগের সম্পর্ক মানবজাতির সামাজিক সমস্যা ও তার সমাধানের সাথে। এ বিষয়ে ইসলামী শিক্ষা, আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের বাণী ও নির্দেশনা এবং তাঁর জারিকৃত নীতি ও বিধান এ প্রবন্ধের বিষয়বস্তু।

মঙ্গলবার, ১০ আগস্ট ২০২১, ২২:১৬

আমরা তো সেই জাতি

আজ থেকে প্রায় ১৪ শত বছর পূর্বে মরুভূমি ঘেরা আরব্য বালিয়াড়ির মাঝে জন্মেছিল এক নতুন সভ্যতা। একটি উন্নত মানবতার সভ্যতা। সূর্যালোকে চিকচিক করা বালুকরাশি আরব্য বেদুঈনদের জীবনে চির কল্যাণ, মহা সাফল্যের সুরাহা নিয়ে উপস্থিত হয়েছিল মানবতার চির মুক্তির দিশারী।

শনিবার, ৭ আগস্ট ২০২১, ১০:৪৮

নবীগণের সর্দার মুহাম্মদ সাঃ এর সৌন্দর্যের পাঁচ বর্ণনা

আল্লাহর রাসূল হযরত মুহাম্মদ (সা.) ছিলেন অতুলনীয় সৌন্দর্যের অধিকারী। যদিও তার কোনো ছবি সংরক্ষণ করা হয়নি বা এ ছবি সংরক্ষণকেও সাধারণভাবে তার প্রতি অসম্মানের বিষয় মনে করা হয়, তথাপি রাসূল (সা.) এর সৌন্দর্যের বিবরণ আমরা আল্লাহর রাসূলের সাহাবীদের বিবরণ থেকে জানতে পারি।

মঙ্গলবার, ১৩ জুলাই ২০২১, ০৯:৩১

রাসূল (সা.) যে পদ্ধতিতে রোম সম্রাটকে ইসলামের দাওয়াত দিয়েছেন

মহান রাব্বুল আলামিন আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কোরআনুল কারিমে ইসলামের দিকে দাওয়াত ও তাবলিগের মূলনীতি কেমন হবে- এ সম্পর্কে পদ্ধতি বর্ণনা করেছেন। 

শনিবার, ৭ নভেম্বর ২০২০, ০৯:০৩

সীরাত : মানব জীবনের সর্বোত্তম নমুনা

لَقَدْ كَانَ لَكُمْ فِیْ رَسُوْلِ اللهِ اُسْوَةٌ حَسَنَةٌ لِّمَنْ كَانَ یَرْجُوا اللهَ وَ الْیَوْمَ الْاٰخِرَ وَ ذَكَرَ اللهَ كَثِیْرًا .

সূরাতুল আহযাবের একটি বিখ্যাত আয়াত তিলাওয়াত করা হল, সূরা : ৩৩, আয়াত : ২১। এই আয়াতে আল্লাহ পাক রাসূলে কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের একটি প্রধান বৈশিষ্ট্য উল্লেখ করেছেন। আর তা হচ্ছে, তিনি আল্লাহভীরুদের ‘উসওয়ায়ে হাসানা’ উত্তম আদর্শ। রাসূল এবং পয়গম্বর যিনি হন, তিনি আল্লাহ পাকের পক্ষ থেকে মানবজাতির জন্য আদর্শ নিয়ে আসেন এবং আদর্শ হয়ে আসেন। আল্লাহ পাক তাঁর হেদায়েত ও পথনির্দেশ পৌঁছাবার জন্য মানবজাতির মধ্য থেকে তাঁর কিছু বিশিষ্ট বান্দাকে নির্বাচন করেন এবং তাঁদের মাধ্যমে তাঁর পথনির্দেশ বান্দাদের কাছে প্রেরণ করেন। হযরত আদম আ. থেকে নবী ও রাসূলের এই ধারা আরম্ভ করেছেন এবং হযরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের মাধ্যমে এর সমাপ্তি ঘটিয়েছেন।

রোববার, ৩ মে ২০২০, ১৫:৩৭