ব্রেকিং:
সংরক্ষিত নারী আসনের ভোট ৪ মার্চ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নির্বাচন উপলক্ষে ১৮ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন.

বুধবার   ১৩ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ২৯ ১৪২৬  

সর্বশেষ:
সংরক্ষিত নারী আসনের ভোট ৪ মার্চ ওয়েজবোর্ডের বিষয়টিকে আমরা বিশেষভাবে গুরুত্ব দিচ্ছি
২৫৫৮

আমীর খসরু থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে ভোটাররা 

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২২ ডিসেম্বর ২০১৮  

ভোটার তালিকায় চট্টগ্রাম-১১ (বন্দর, পতেঙ্গা, ডাবলমুরিং, ইপিজেডও সদরঘাট) আসনে শ্রমিকদের প্রাধান্য রয়েছে।  আর এই নিম্ন আয়ের মানুষের সঙ্গে লেগেই ছিলেন এই আসনের সাংসদ এমএ লতিফ। গত ১০ বছরে শ্রমিকদের সঙ্গে লেগে থাকার সুফল এবার তিনি ভোগ করছেন নির্বাচনী মাঠে।

 

দেশের আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যের প্রধান কেন্দ্র বন্দর এবং দুটি ইপিজেড এলাকা নিয়ে গঠিত চট্টগ্রাম-১১ আসন। এ আসনে শ্রমিক-কর্মচারীদের ভোটেই নির্ধারণ হয় জয়-পরাজয়।  আর এই আসনটিতে দুই প্রধান দলই প্রার্থী করেছে দুই ব্যবসায়ীকে।  আওয়ামী লীগের প্রার্থী গত দুই বারের সাংসদ এম এ লতিফ এবং বিএনপির আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। 

জনাব আমীর খসরু কিছুদিন আগে দুর্নীতির মামলা ও টেলিফোনে সহিংসতা ছড়িয়ে উত্তেজনা সৃষ্টির মামলা থেকে জামিন লাভ করে নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন। বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য এক সময় বাণিজ্য মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। নিজের দলের খোদ কর্মীরাই তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন, তিনি নির্বাচিত হয়ে এলাকা মুখি হন না। বিত্তশালী অঢেল সম্পদের মালিক হয়েও এলাকার মানুষের জন্য খরচ করেন না। সুখে দুখে জনগণকে সাহায্য করেন না।

 

চট্টগ্রাম জেলার ১৬টি আসনের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ভোটার চট্টগ্রাম-১১ (বন্দর-পতেঙ্গা) আসনে। এই আসনের মোট ভোটার ৫ লাখ ৭ হাজার ৪০৫ জন। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ১০টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত এই সংসদীয় আসনের এলাকাতেই চট্টগ্রাম বন্দর, চট্টগ্রাম রপ্তানি প্রক্রিয়াজাতকরণ এলাকা (সিইপিজেড) ও কর্ণফুলী ইপিজেড।

 

নগর বিএনপির সহ-সভাপতি শ্রমিক নেতা মোহাম্মদ মিয়া ভোলা বলেন, দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত আমীর খসরু দলের নেতাকর্মীর ও এলাকার মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতেন না। এই কারণে নির্বাচনী প্রচারে আমাদের কিছুটা বেগ পেতে হচ্ছে । 

ইপিজেড এ পোশাক কারখানা ইয়াংওয়ান এ কর্মরত কর্মজীবী মহিলা সুরাইয়া খাতুন বলেন, আমাদের এলাকার  এম পি লতিফ সাহেব দীর্ঘদিন ধরে , আমাদের বাড়ীর মোড়েই খোলা পিকআপে করে  ভর্তুকি মূল্যে  চাল, ডাল, তেল, আটাসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় বাজার সরবারাহ করছেন।  এ

 

উল্লেখ্য গত ৮ বছর ধরে এই আসনের এম পি জনাব এম, এ লতিফ নিজের অর্থায়নে তার পুরো নির্বাচনী এলাকায় এই কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। 

 

এ আসনের অন্য প্রার্থীরা হলেন বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির (কোদাল) অপু দাশ গুপ্ত, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের (চেয়ার) আবুল বাশার মুহাম্মদ জয়নুল আবেদীন, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের (মোমবাতি) এম এ মতিন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের (হাতপাখা) মো. লোকমান সওদাগর, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের (বটগাছ) মৌলভী রশিদুল হক।


অনলাইন নিউজ পোর্টাল
অনলাইন নিউজ পোর্টাল
এই বিভাগের আরো খবর