ব্রেকিং:
কাশ্মীরে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত, পাইলট নিহত পদত্যাগ করলেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী দিনাজপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় চাচা ভাতিজাসহ নিহত ৩

বুধবার   ২৭ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ১৪ ১৪২৭,   ১২ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সর্বশেষ:
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু দেবহাটায় একই পরিবারের ৫ জনকে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় আটক ১ ফেব্রুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহের মধ্যে খুলবে সরকারি প্রাথমিক
৫৫

ডিবি পরিচয়ে অর্থ লুট, গ্রেফতার ১০

প্রকাশিত: ৪ ডিসেম্বর ২০২০  

ডিবি পরিচয়ে মামলার ভয় দেখিয়ে নগদ টাকা, মোবাইল ফোনসহ অন্য মূল্যবান জিনিস ছিনিয়ে নেওয়া চক্রের প্রধানসহ ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের লালবাগ বিভাগ।

বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতাররা হলেন- মহসিন শেখ (৩০), আনিছুর রহমান (৫০), সেন্টু মুন্সি (৪০), জুয়েল মিয়া (৩০), শাহিন শেখ (২৫), মহব্বত শেখ (৩২), আবুল কালাম (৫০), সুলতান মোল্লা (৩৪), হেমায়েত শেখ (৫৫) ও কাইয়ুম শেখ (৪৫)। এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি প্রাইভেটকার, ডিবির জ্যাকেট, ওয়ারলেস সেট, এক জোড়া হ্যান্ডকাপ ও পুলিশ লেখা স্টিকার উদ্ধার করা হয়।

ডিবির সহকারী কমিশনার (এসি) ফজলুর রহমান জানান, ঢাকাসহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় কখনও রিকশাচালক কখনও ফেরিওয়ালা সেজে এ চক্রের সহযোগিরা টার্গেট নির্ধারণ করেন। কথার ছলে সেই টার্গেট লোকজনদের বলেন তারা রাস্তায় বিদেশি রিয়েল পেয়েছেন। তিনি অশিক্ষিত মানুষ, কীভাবে এটা ভাঙাতে হয় জানেন না। রিয়েল ভাঙিয়ে দিলে বিনিময়ে কিছু টাকা দেবেন বলে প্রস্তাব দেন।

রিয়েল ভাঙিয়ে দিলে চক্রের সদস্যরা ওই লোকটির ফোন নম্বর নেন। পরবর্তীতে যোগাযোগ করে তাদের কাছে আরও রিয়েল আছে এবং সেগুলো অর্ধেক দামে বিক্রি করবেন বলে জানান। এমন প্রলোভনে লোকটি রাজি হলে টাকা নিয়ে তাদের পছন্দমতো জায়গায় আসতে বলা হয়।

এদিকে চক্রের অপর একটি দল ভুয়া ডিবি পুলিশ সেজে নির্ধারিত স্থানে অপেক্ষা করতে থাকে। কথিত রিয়েলের মালিক রিকশাচালক বা ফেরিওয়ালা টাকার বিনিময়ে কাপড়ে মোড়ানো কাগজের বান্ডেল ধরিয়ে দিয়ে বলেন, পুলিশ আসছে তাড়াতাড়ি চলে যান। এ কথা বলে রিয়েল বিক্রেতা টাকা নিয়ে সটকে পড়েন।

কিন্তু ক্রেতা সামনে এগুতেই ওৎ পেতে থাকা ভুয়া ডিবি দলের সদস্যরা তাকে গাড়িতে উঠিয়ে নেন। এরপর তার কাছে অবৈধ রিয়েল আছে, তার বিরুদ্ধে মামলা/মিডিয়ায় প্রচার করার ভয় দেখিয়ে কাছে থাকা নগদ টাকা, মোবাইল ফোন বা অন্য মূল্যবান জিনিস ছিনিয়ে নেন।

রিয়েল ক্রেতার কাছে এটিএম কার্ড থাকলে বুথ থেকে টাকা তুলে নেন ও মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে টাকা ট্রান্সফার করে নেন। এরপর ভিকটিমকে সুবিধাজনক স্থানে নামিয়ে দিয়ে ভুয়া ডিবির দলটি চলে যায়।

এসি ফজলুর রহমান বলেন, আটকদের বিরুদ্ধে ঢাকা ছাড়াও দেশের বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় এ ধরনের অনেকগুলো চক্র রয়েছে। পলাতক ও অন্য সদস্যদের গ্রেফতারে অভিযান চলমান রয়েছে।

 


অনলাইন নিউজ পোর্টাল
অনলাইন নিউজ পোর্টাল
এই বিভাগের আরো খবর