ব্রেকিং:
সংরক্ষিত নারী আসনের ভোট ৪ মার্চ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নির্বাচন উপলক্ষে ১৮ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন.

বুধবার   ১৩ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ২৯ ১৪২৬  

সর্বশেষ:
সংরক্ষিত নারী আসনের ভোট ৪ মার্চ ওয়েজবোর্ডের বিষয়টিকে আমরা বিশেষভাবে গুরুত্ব দিচ্ছি
১৭৫২

কুলগাঁওয়ে আধুনিক বাস টার্মিনালের নির্মাণ কাজ শীঘ্রই শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২১ নভেম্বর ২০১৮  

চট্টগ্রাম নগরীর কুলগাঁওয়ে আধুনিক বাস টার্মিনাল নির্মাণের কাজ শুরু হবে খুব শীঘ্রই। ইতোমধ্যে টার্মিনালের নকশাও চূাড়ান্ত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নের দায়িত্ব নিজে নিয়েছিলেন বলেই চট্টগ্রামবাসী অত্যাধুনিক বাস টার্মিনাল পেতে যাচ্ছে। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে চট্টগ্রামে যাত্রীবাহী বাস চলাচলে আমূল পরিবর্তন আসবে। এতে ভ্রমণে ভোগান্তি কমবে নগরবাসীর। 

 

গত ১২ আগস্ট একনেকে প্রকল্পটির অনুমোদন দেয়া হয়। চট্টগ্রাম-হাটহাজারি রোডের ২ নং জালালাবাদ ওয়ার্ডে বালুচড়া এলাকায় টার্মিনালটি নির্মাণ করা হবে। ১৬ একর জায়গার ওপর এটি নির্মিত হবে। এর মধ্যে আট একর জায়গা সিডিএ’র। আগামী মাসে বাকি আট একর জায়গা অধিগ্রহণ করা হবে। অধিগ্রহণে খরচ ধরা হয়েছে ২৬০ কোটি টাকা। টার্মিনালের জমির উন্নয়ন বাবদ ৩ কোটি ৩৭ লাখ টাকা, বাস ট্রাক টার্মিনালের অবকাঠামো উন্নয়নে ৭ কোটি টাকা, ড্রেনেজ ব্যবস্থাসহ ইয়ার্ড নির্মাণে আড়াই কোটি টাকা ব্যয় করা হবে।

 

চট্টগ্রাম থেকে দূরপাল্লার এবং আন্তঃনগর উভয় ধরনের বাস এখান থেকে ছেড়ে যাবে। টার্মিনালের মুখে চারতলা ভবন তৈরি হবে। এর প্রথম তলায় ৭টি স্থানে যাত্রীরা বাস থেকে নামবেন এবং ২৫ টি স্থান থেকে যাত্রীরা বাসে উঠতে পারবেন। এছাড়াও আরো ১৪ টি স্থানে বাসের জন্য অপেক্ষার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। ভবনে ৫টি প্রশস্ত লিফট, দুইটি এস্কেলেটর ছাড়াও তিনটি হাঁটার সিঁড়ি থাকবে। প্রতিবন্ধী, নারী-পুরুষের জন্য আলাদা টয়লেটের ব্যবস্থাও করা হবে। সর্বমোট ২২ টি টিকেট কাউন্টার, লাগেজ রুম, ট্যাক্সি কলিং বুথ, ফাস্টএইড কর্নার এবং নাশতার দোকান থাকবে নিচতলায়।

 

ভবনের দ্বিতীয় তলায় থাকবে বিভিন্ন পণ্যের দোকান। এছাড়া থাকবে এসি বাসের যাত্রীদের জন্য হসপিটালিটি লাউঞ্জ। তৃতীয় তলায় বিশেষ ব্যবস্থা করা হবে ট্যুরিস্টদের জন্য। আরো থাকবে ভিআইপি লাউঞ্জ, বাস কোম্পানির অফিস, টার্মিনাল ফ্যাসিলিটি অফিস। চতুর্থ তলায় বাস কোম্পানির অফিস এবং প্যানোরেমা রেস্টুরেন্ট থাকবে।

 

টার্মিনালের একপাশে প্রাইভেট কার এবং সিএনজি ট্যাক্সি পার্কিং-এর ব্যবস্থা করা হবে। এখানে ৩০টি প্রাইভেট কার এবং ট্যাক্সি দাঁড়াতে পারবে। এর পাশে পেট্রোল পাম্প থেকে একসাথে তেল ও গ্যাস সংগ্রহ করতে পারবে ৬টি গাড়ি। টার্মিনালের ডিপোতে একসাথে ৬৯ টি বাস রাখা যাবে। বাসের সার্ভিসিং ও রিপেয়ারিং করার জন্য সাতটি সেন্টার গ্যারেজ থাকবে। মেনটেনেন্স-বে থাকবে আটটি। থাকবে গাড়ির পার্টসের দোকানও। বাসচালক ও স্টাফদের জন্য একটি কমন রুম এবং বোর্ডিং রুমের ব্যবস্থা থাকবে। এছাড়া থাকবে স্টাফ ক্যান্টিন। এর পাশেই নির্মাণ করা হবে টেকনিক্যাল সাপোর্টের জন্য টার্মিনালের সাব স্টেশন। যাত্রীদের কথা মাথায় রেখে ১০ তলা একটি কমার্শিয়াল ভবন তৈরি করা হবে। এছাড়া সৌন্দর্যবর্ধনের জন্য টার্মিনালের মাঝে একটি পানির ফোয়ারা নির্মাণ করা হবে।


অনলাইন নিউজ পোর্টাল
অনলাইন নিউজ পোর্টাল
এই বিভাগের আরো খবর