বুধবার ২৯ নভেম্বর ২০২৩, অগ্রাহায়ণ ১৫ ১৪৩০, ১৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৫

স্পেশাল

সুস্থ ও আলাদা হয়ে বাড়ি ফিরল জোড়া লাগানো ওমর ফারুক ও আবু বকর

 প্রকাশিত: ১৮:৫৭, ৪ অক্টোবর ২০২৩

সুস্থ ও আলাদা হয়ে বাড়ি ফিরল জোড়া লাগানো ওমর ফারুক ও আবু বকর

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র অর্থায়নে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসা শেষে  সুস্থ ও আলাদা হয়ে পেটে ও বুকে জোড়া লাগানো গোপালগঞ্জে জন্ম নেয়া শিশু ওমর ফারুক ও আবু বকর বাড়ি ফিরল।

আজ বুধবার সফল অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে পৃথকীকরণ শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরা উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ ডা. মিল্টন হলে সংবাদ সম্মেলন ও বিশেষ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তারা পিতা-মাতাসহ আত্মীয়দের সঙ্গে বাড়ি ফিরলেন।

এই সময়ে হাসপাতাল থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ দুই শিশুর মা-বাবার হাতে ছাড়পত্র ও উপহার সামগ্রী তুলে দেন। 

এ সময় উপাচার্য শিশু দুটির জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র দেয়া চিকিৎসা সহায়তার অর্থের চেকও তুলে দেন।

উপাচার্য বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে সব ধরনের জটিল কঠিন রোগের চিকিৎসা সেবা দেয়া হয়। সেবার মান বৃদ্ধি পাওয়ায় এখানে রোগীর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিশু সার্জারি বিভাগে শুধু ওমর ফারুক ও আবু বকরের জটিল অপারেশন হয় নি, এর আগেও এখানে বহু জটিল অপারেশন সম্পন্ন হয়েছে। দেশে  প্রথমবারের মত স্বল্প খরচে সফল লিভার  প্রতিস্থাপন করেছি। আমাদের সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতালে  প্রতি সপ্তাহে দুটি করে কিডনি  ট্রান্সপ্লান্ট করছি। এছাড়াও দেশে প্রথমবারের মতো সফল ক্যাডাভেরিক  ট্রান্সপ্ল্যান্ট করতে সক্ষম হয়েছি।  

অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. একেএম  মোশাররফ হোসেন, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. ছয়েফ উদ্দিন আহমদ, উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. মনিরুজ্জামান খান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আতিকুর রহমান, সার্জারি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ হোসেন ও মেডিসিন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. মাসুদা বেগম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ২০ সেপ্টেম্বর  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রত্যক্ষ নির্দেশনা এবং অর্থায়নে টুঙ্গিপাড়ার পেটে ও বুকে জোড়া লাগানো চিকিৎসাধীন ৭৮ দিন বয়সী আবু বকর ও ওমর ফারুক নামের দুজন শিশুর দেহে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিশু সার্জারী বিভাগের চিকিৎসকরা কেবিন ব্লকের অপারেশন থিয়েটারে সফলভাবে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে শিশু দুজনকে আলাদা করেন। গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়া পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা, ভ্যানচালক, পিতা শহর আলী খানের মেয়ে চায়না বেগম এবং তার স্বামী আল আমিন শেখের ঘরে চলতি বছর ৪ জুলাই বুকে পেটে জোড়া লাগানো দুজন নবজাতক জন্মগ্রহণ করে। জন্মগ্রহণের পর তাদের শরীরের জটিলতা নিরসনের জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদের তত্ত্বাবধানে ৫ জুলাই তাদেরকে শিশু সার্জারী বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এ.কে.এম জাহিদ হোসেনের অধীনে ২০১ নং কেবিনে ভর্তি করা হয়। 

পরে প্রধানমন্ত্রী এ দুই নবজাতকের চিকিৎসার ভার  গ্রহণ করেন।

মন্তব্য করুন: