ব্রেকিং:
সংরক্ষিত নারী আসনের ভোট ৪ মার্চ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নির্বাচন উপলক্ষে ১৮ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন.

শনিবার   ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২২ ১৪২৬  

সর্বশেষ:
সংরক্ষিত নারী আসনের ভোট ৪ মার্চ ওয়েজবোর্ডের বিষয়টিকে আমরা বিশেষভাবে গুরুত্ব দিচ্ছি
১৪৯

নকল, অবৈধ মোবাইল শনাক্তে আইএমইআই ডাটাবেজ চালু

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২৬ জানুয়ারি ২০১৯  

প্রথমবারের মতো দেশে চালু হয়েছে আইএমইআই (ইন্টারন্যাশনাল মোবাইল ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি) ডাটাবেজ। এর মাধ্যমে গ্রাহকরা মোবাইলটি নকল বা অবৈধ কি-না তা জেনে নিতে পারবেন। রোধ করা যাবে মোবাইল চুরি। চোরাইপথে আমদানি বন্ধ হওয়ায় বাড়বে সরকারের রাজস্ব আয়। মোবাইলের মাধ্যমে সংগঠিত হওয়া অপরাধও ঠেকানো সম্ভব হবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

মঙ্গলবার বিকালে রাজধানীর বিটিআরসি ভবনে আইএমইআই ডাটাবেজের উদ্বোধন করেন ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার।

নিজের মোবাইলের আইএমইআই নম্বর ১৬০০২ নম্বরে এসএমএস করে নিজের মোবাইলের সঠিকতা জানার মাধ্যমে ডাটাবেজের উদ্বোধন করেন মন্ত্রী।

ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার বলেন, এই মুহূর্তটি দেশের জন্য একটি মাইলফলক। আগে আমরা সরকারের কাছে রেয়াত, কর অব্যাহতি চেয়েছি। এখন এর মাধ্যমে সরকারকে আরও বেশি রাজস্ব দিতে পারব। চুরি করা হ্যান্ডসেট আমদানি রোধ হওয়ায় রাজস্ব ফাঁকি হ্রাস পাবে। এনবিআর এখন ঘরে বসেই বুঝতে পারবে কে কর দিয়েছে আর কে দেয়নি।

তিনি বলেন, নতুন এই প্রযুক্তি চালুর ফলে দেশে গড়ে উঠা মোবাইল উদ্যোক্তারাও উপকৃত হবেন।

বিটিআরসির চেয়ারম্যান জহুরুল হক বলেন, আইএমইআই ডাটাবেজ চালুর ফলে সরকারের রাজস্ব বাড়বে৷ অবৈধ পথে হ্যান্ডসেট আমদানি বন্ধ হবে। কাস্টমস কর্তৃক আইএমইএই'র তথ্য জানা যাবে। নির্দিষ্ট সময়ে কত সংখ্যক মোবাইল আমদানি ও দেশে তৈরি হয়েছে তাও জানা যাবে।

তিনি বলেন, বিটিআরসি সব সময় গ্রাহকদের স্বার্থ বিবেচনা করে। একই সাথে সরকারের রাজস্ব বাড়ানোর লক্ষ্যে কাজ করছে। আইএমইআই চালুও তেমনই একটি উদ্যোগ।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব অশোক কুমার বিশ্বাস বলেন, দেশের জন্য এটি একটি নতুন উদ্যোগ। দেশে এটি মার্কেট পাবে বলে আমার বিশ্বাস।

বাংলাদেশ মোবাইল ফোন ইম্পোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমপিআইএ) সভাপতি রুহুল আলম আল মাহবুব বলেন, এর মাধ্যমে দেশের রাজস্ব আয় বাড়বে। সহজেই অপরাধীদের শনাক্ত করা সম্ভব হবে। একই সাথে মোবাইল চুরিও ঠেকানো যাবে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, আইএমইআই ডাটাবেজ থেকে পরীক্ষা করে দেখা হবে কোন কোন নম্বর (আইএমইআই) নকল। তখন নকল আইএমইআই ব্যবহার হওয়া ফোনগুলো বন্ধ করে দেওয়া হবে। তাদের মতে, আইএমইআই নকল না আসল তা পরীক্ষার জন্য অনেক পদ্ধতি রয়েছে। মোবাইল ফোন পরীক্ষার জন্য সেসব পদ্ধতিই অনুসরণ করা হবে।

কীভাবে আইএমইআই যাচাই করা যাবে:

নতুন মোবাইল ক্রয় করার ক্ষেত্রে প্যাকেটের গায়ে লেখা ১৫ ডিজিটের আইএমইআই নম্বর এবং ব্যবহৃত মোবাইলের ক্ষেত্রে  *#০৬# চেপে ১৫ ডিজিটের নম্বর KYD১৫ ডিজিটের আইএমইআই নম্বর লিখে ১৬০০২ নম্বরে পাঠিয়ে দিলে ফিরতি ম্যাসেজে আইএমইআই নম্বরটি বিটিআরসির ডাটাবেজে সংরক্ষিত রয়েছে কি-না তা জানা যাবে।


অনলাইন নিউজ পোর্টাল
অনলাইন নিউজ পোর্টাল
এই বিভাগের আরো খবর