সোমবার ২৪ জানুয়ারি ২০২২, মাঘ ১১ ১৪২৮, ২০ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

রাজনীতি

আমি জানি এ পথে আমার মৃত্যু

 প্রকাশিত: ১১:০৪, ১১ মার্চ ২০২১

আমি জানি এ পথে আমার মৃত্যু

মঙ্গলবার রাতে নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভা চত্বরে আওয়ামী লীগের বিবদমান দুই গ্রুপের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনা ঘটে। এরপর থেকেই পৌর ভবনের একটি কক্ষে অবস্থান নিয়েছেন পৌর মেয়র ও আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের ভাই আবদুল কাদের মির্জা।

বুধবার সারা দিন প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোম্পানীগঞ্জে ১৪৪ ধারা জারি থাকলেও পৌর ভবনে কয়েকশ অনুসারী-নেতাকর্মী নিয়ে অবস্থান নেন তিনি। ১৪৪ ধারা চলাকালে পাঁচজনের বেশি জমায়েত নিষিদ্ধ করা হলেও পৌর ভবন ও চত্বরে কাদের মির্জার অনুসারী অনেক নেতাকর্মী অবস্থান করছিলেন। তাদের সরাতে বা ছত্রভঙ্গ করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কোনো উদ্যোগ দেখা যায়নি। তবে উপজেলা সদরজুড়ে অতিরিক্ত র‌্যাব, পুলিশ ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের টহল দেখা গেছে। এ অবস্থায় সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি জানিয়েছেন কাদের মির্জা। এদিন দুপুরে যুগান্তরের সঙ্গে একান্তে আলাপকালে তিনি বলেন, ‘আমি জানি এ পথে আমার মৃত্যু হবে। তারপরও আমি দেখতে চাই ওরা কত খেলা খেলে। আমার কাছে অস্ত্র নেই। আমি অস্ত্রের রাজনীতি করি না। তারা দুটি লাশ ফেলল। এ ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হোক।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে কথা বলে প্রধানমন্ত্রীকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছেন ওবায়দুল কাদের। আমার সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনেক কথা বলেছেন। পরশু (সোমবার) প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। তিনি জানতে চেয়েছিলেন ভাইয়ের সঙ্গে আমার কী হয়েছে? আমি বলেছি: আপা, আমার অনেক কথা আছে। আমি আপনার সঙ্গে সাক্ষাতে বলতে চাই।’

আরেক প্রশ্নে কাদের মির্জা বলেন, ‘এদেশে ন্যায়ের পক্ষে কথা বলা কঠিন। গত নির্বাচনে সরকারি কর্মকর্তা বলেছিলেন ২৫ শতাংশ ভোট কেটে নিতে হবে। ইউ ডু ইট। এটা আমি মেনে নিতে পারি না। শেখ হাসিনার অনেক অর্জন আছে। বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতা দিয়ে গেছেন। কিন্তু আমরা জনগণকে ভোটাধিকার দিতে পারিনি। আমার কোনো মোহ নেই। আমার যা পাওয়ার আমি পেয়ে গেছি।’

অনলাইন নিউজ পোর্টাল

মন্তব্য করুন: