ব্রেকিং:
সারাদেশে সপ্তাহের শেষে তাপমাত্রা বাড়বে বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত সাড়ে ১১ কোটি, মৃত্যু সাড়ে ২৫ লাখ

বুধবার   ০৩ মার্চ ২০২১,   ফাল্গুন ১৯ ১৪২৭,   ১৮ রজব ১৪৪২

সর্বশেষ:
ভালুকায় বাসচাপায় বাবা নিহত, আহত ছেলে তালেবানের অংশগ্রহণে আফগানিস্তানে অন্তর্বর্তী সরকার হচ্ছে! জমজম কূপের প্রধান প্রকৌশলী ইয়াহইয়াহ হামজার ইন্তেকাল কারাগারে লেখক মুশতাকের মৃত্যু নিয়ে যা বললেন গোলাম রাব্বানী আন্দামান সাগরে ভাসমান রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে পাঠাতে চায় ভারত
১৫৩

হাদিসের ভাষায় শ্রেষ্ঠ মানুষের গুণাবলি

প্রকাশিত: ২২ জানুয়ারি ২০২১  

মানুষ আশরাফুল মাখলুকাত বা সৃষ্টির সেরা জীব। সব মানুষ মৌলিক অধিকার ও সম্মানের ক্ষেত্রে সমান। মহান আল্লাহ বলেন, ‘আমি মানবজাতিকে সম্মানিত করেছি, তাদের কর্তৃত্ব দিয়েছি স্থলে ও জলে, তাদের দিয়েছি উত্তম জীবিকা এবং তাদের শ্রেষ্ঠত্ব দিয়েছি আমার সৃষ্টিজগতের অনেকের ওপর।’ (সুরা বনি ইসরাইল, আয়াত : ৭০)

মৌলিক অধিকার ও সম্মানের ক্ষেত্রে সব মানুষ সমান হলেও জ্ঞান, আল্লাহভীতি ও বিভিন্ন গুণ-বৈশিষ্ট্যে মানুষ অন্যের ওপর শ্রেষ্ঠত্ব লাভ করতে পারে। আল্লাহ বলেন, ‘বলুন! যারা জানে এবং যারা জানে না তারা কি কখনো সমান হতে পারে?’ (সুরা জুমার, আয়াত : ৯)

একজন মানুষ অন্যজনের ওপর শ্রেষ্ঠত্ব পেতে পারে কিছু বৈশিষ্ট্যের কারণে। রাসুল (সা.) হাদিসে বিভিন্ন সময় ওই সব ভালো মানুষের পরিচয় দিয়েছেন। এসব বর্ণনা পারস্পরিক সাংঘর্ষিক নয়; বরং প্রতিটি গুণ ও বৈশিষ্ট্য নিজ অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে শ্রেষ্ঠত্বের প্রমাণ বহন করে। এখানে এমন ১৫টি গুণের কথা বর্ণনা করা হলো—

১. কোরআন শেখা ও শেখানো : রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘তোমাদের মধ্যে সর্বোত্তম ওই ব্যক্তি, যে নিজে কোরআন শেখে এবং অন্যকে শেখায়।’ (বুখারি, হাদিস : ৫০২৭)

২. উত্তম আচরণ : রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘নিশ্চয়ই তোমাদের মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ ওই ব্যক্তি, যে তোমাদের মধ্যে সর্বোত্তম আচরণের অধিকারী।’ (বুখারি, হাদিস : ৬০৩৫)

৩. ঋণ পরিশোধ : মহানবী (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘তোমাদের মধ্যে সর্বসেরা ওই ব্যক্তি, যে ঋণ পরিশোধের বেলায় ভালো।’ (বুখারি, হাদিস নম্বর : ২৩০৫)

৪. মানুষ শঙ্কামুক্ত : রাসুলে করিম (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘তোমাদের মধ্যে সর্বোত্তম ওই ব্যক্তি, যার কাছ থেকে সবাই কল্যাণ আশা করে, অনিষ্টের আশঙ্কা করে না।’ (তিরমিজি, হাদিস নম্বর : ২২৬৩/২৪৩২)

৫. পরিবারের কাছে ভালো হওয়া : রাসুলে করিম (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘তোমাদের মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ ওই ব্যক্তি, যে তার পরিবারের কাছে ভালো।’ (সহিহ ইবনে হিব্বান, হাদিস নম্বর : ৪১৭৭)

৬. দীর্ঘায়ু ও ভালো কাজ : মহানবী (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘সেরা মানুষ সে, যার বয়স দীর্ঘ ও কর্ম ভালো হয়।’ (জামিউল আহাদিস, হাদিস : ১২১০১)

৭. মানুষের উপকারী : মহানবী (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘সর্বোত্তম মানুষ সে, যে মানবতার জন্য অধিক কল্যাণকর ও উপকারী। (সহিহুল জামে, হাদিস নম্বর : ৩২৮৯)

৮. স্বচ্ছ অন্তর : মহানবী (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘শ্রেষ্ঠ মানুষ হলো যার অন্তর পরিচ্ছন্ন ও মুখ সত্যবাদী। সাহাবিরা জিজ্ঞেস করেন, হে আল্লাহর রাসুল, সত্যবাদী মুখ বোঝা গেল; কিন্তু পরিচ্ছন্ন অন্তরের অধিকারী কে? রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, যে অন্তর স্বচ্ছ ও নির্মল, মুত্তাকি, যাতে কোনো পাপ নেই, বাড়াবাড়ি বা জুলুম নেই, নেই খেয়ানত ও বিদ্বেষ। (সহিহুল জামে, হাদিস : ৩২৯১)

৯. উত্তম প্রতিবেশী : মহানবী (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘আল্লাহর কাছে সর্বোত্তম সঙ্গী সে, যে তার সঙ্গীর কাছে উত্তম। আর আল্লাহর কাছে সর্বোত্তম প্রতিবেশী সে, যে তার প্রতিবেশীর কাছে উত্তম।’ (তিরমিজি, হাদিস : ১৯৪৪)

১০. চরিত্র ভালো : রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘তোমাদের মধ্যে সর্বোত্তম ব্যক্তি সে, যার চরিত্র সবচেয়ে বেশি সুন্দর।’ (বুখারি, হাদিস নম্বর : ৩৫৫৯)

১১. আল্লাহকে বেশি ভয়কারী : আবু হুরাইরা (রা.) বলেন, রাসুলুল্লাহ (সা.)-কে জিজ্ঞেস করা হলো, ‘শ্রেষ্ঠ মর্যাদার অধিকারী মানুষ কে?’ রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, ‘মানুষের মধ্যে আল্লাহ তাআলার কাছে শ্রেষ্ঠ মর্যাদার অধিকারী ওই ব্যক্তি, যে আল্লাহকে বেশি ভয় করে।’ (বুখারি, হাদিস : ৪৬৮৯)

১২. আল্লাহর পথে লড়াইকারী : আবু সাঈদ খুদরি (রা.) বলেন, রাসুলুল্লাহ (সা.)-কে জিজ্ঞাসা করা হলো, ‘হে আল্লাহর রাসুল, সর্বোত্তম মানুষ কে?’ রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, ‘ওই মুমিন, যে নিজ জীবন-সম্পদ নিয়ে আল্লাহর পথে জিহাদ করে।’ (বুখারি, হাদিস : ২৭৮৬)

১৩. যাকে দেখলে আল্লাহর কথা স্মরণ হয় : আসমা বিনতে ইয়াজিদ (রা.) রাসুলুল্লাহ (সা.)-কে বলতে শুনেছেন : ‘তোমাদের মধ্যে সর্বোত্তম ব্যক্তি হলো যাকে দেখলে আল্লাহর কথা স্মরণ হয়।’ (ইবনে মাজাহ, হাদিস : ৪১১৯)

১৪. পরিবারের দুঃখ দূর করা : সুরাকা ইবনে মালিক (রা.) সূত্রে বর্ণিত : একদা রাসুলুল্লাহ (সা.) খুতবা প্রদানকালে ইরশাদ করেন, ‘তোমাদের মধ্যে সর্বোত্তম ব্যক্তি হলো যে অন্যের ওপর অত্যাচার করা ছাড়া নিজ পরিবার ও আত্মীয়স্বজন থেকে সব অনিষ্ট দূর করে।’ (আবু দাউদ, হাদিস : ৫১২০)

১৫. তাওবা করা : আবদুল্লাহ ইবনে আমর (রা.) বলেন, রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘তোমাদের মধ্যে সর্বোত্তম ব্যক্তি হলো সে, যে গুনাহ করে ফেললে অধিক তাওবা করে থাকে।’ (শুআবুল ঈমান, হাদিস : ৬৭১৯)


অনলাইন নিউজ পোর্টাল
অনলাইন নিউজ পোর্টাল
এই বিভাগের আরো খবর