বুধবার ৩০ নভেম্বর ২০২২, অগ্রাহায়ণ ১৬ ১৪২৯, ০৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ইসলাম

বরিশালে নির্মিত হচ্ছে মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র

 প্রকাশিত: ১২:২৪, ২৩ নভেম্বর ২০২২

বরিশালে নির্মিত হচ্ছে মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র

ইসলামের ভ্রাতৃত্ব ও মূল্যবোধের প্রচার, উগ্রবাদের বিরুদ্ধে ইসলামের প্রকৃত মর্মবাণী পৌঁছে দিতে নগরীর প্রাণকেন্দ্রে নির্মিত হচ্ছে মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র। নবনির্মিত এ মডেল মসজিদ প্রকল্পটির কাজ প্রায় ৯০ ভাগ সম্পন্ন করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, প্রতিটি জেলা শহর ও উপজেলায় একটি করে সর্বমোট ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় বরিশাল সিটি কর্পোরেশন (বিসিসি) এলাকায় প্রায় ১৪ কোটি টাকা ব্যয়ে ৪ তলা বিশিষ্ট দৃষ্টিনন্দন এ মডেল মসজিদ নির্মাণ করা হচ্ছে। নগরীর আমতলার মোড় মসজিদটি প্রায় ৪৩ শতক জমির ওপর নির্মিত হচ্ছে এ ৪ তলা মডেল মসজিদটিতে প্রায় ৩২ হাজার ৪৮৫ স্কয়ার ফুট স্থান রয়েছে । 

সূত্র জানায়, ২০২০ সালের অক্টোবরে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্ণেল (অব:) জাহিদ ফারুক এমপি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। প্রত্যাশী সংস্থা ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এ মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ করা হচ্ছে। মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র প্রকল্পটি বাস্তবায়নকৃত সংস্থা হিসেবে কাজ করছেন বরিশাল বিভাগীয় গণপূর্ত প্রকৌশল অধিপ্তর বিভাগ। 

সংশ্লিষ্ট সূত্র আরো জানায়, এ মসজিদটিতে প্রতিদিন একসঙ্গে হাজারো মুসল্লি নামাজ আদায় করতে পারবেন। পূর্ণাঙ্গ এ মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রটিতে নামাজ আদায়ের ব্যবস্থা ছাড়াও ইসলামী লাইব্রেরি, ইমাম প্রশিক্ষণ ব্যবস্থা, ইসলামী গবেষণা, হেফজখানা, মরদেহ গোসল, হজ নিবন্ধন, প্রতিবন্ধীরা যাতে নামাজ পড়তে পারেন তাদের প্রবেশের জন্য আলাদা র্যাম (অটিজম কর্ণার), শিশু ও গণশিক্ষা, ইমাম- মুয়াজ্জিনের আবাসন, অতিথিশালাসহ প্রায় ১৪ ধরনের সুযোগ-সুবিধা থাকবে। সর্বোপরি ইসলামী জ্ঞান ও সংস্কৃতি চর্চার মাধ্যমে ইসলামী মূল্যবোধ বিনির্মাণে এক একটি পূর্ণাঙ্গ ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র হয়ে উঠবে এসব মডেল মসজিদ। 

এ প্রসঙ্গে বরিশাল ইসলামিক ফাউন্ডেশন কার্যালয়ের পরিচালক মো. রফিকুল ইসলাম আশা প্রকাশ করে বলেন, পূর্ণাঙ্গ এ মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র প্রকল্পটি সম্পন্ন হলে ইসলাম নিয়ে বিভ্রান্তি ও ধর্মের অপব্যাখ্যা কিছুটা হলেও দূর হবে। পাশাপাশি প্রকৃত ইসলামী মূল্যবোধের প্রসার ঘটবে। ৪তলা বিশিষ্ট মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কমপ্লেক্সটি দ্বীনি দাওয়াত কার্যক্রম, ইসলামী সংস্কৃতি চর্চার জ্ঞান অর্জন, গবেষণার সুযোগ, প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা, পাশাপাশি মাদক, সন্ত্রাস, যৌতুক, নারীর প্রতি সহিংসতা, সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করা সহজ হবে।

এ প্রসঙ্গে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কর্ণেল (অব:) জাহিদ ফারুক এমপি বলেন, মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কমপ্লেক্সটির কাজ সম্পন্ন হলে নগরীর মুসলিম ঐতিহ্য আরও সমৃদ্ধ হবে এবং দৃষ্টিনন্দন স্থানে পরিণত হবে। 

তিনি আরো বলেন, মডেল মসজিদ ও সাংস্কৃতিক কম প্লেক্সটি সরকারের উন্নয়ন ধারাবাহিকতারই অংশ। জনগণকে সেবা দেওয়াই সরকার এবং আমাদের উদ্দেশ্য। এ মডেল মসজিদটি ধর্মপ্রাণ মুসল্লীদের কাজে আসবে।

মন্তব্য করুন: