ব্রেকিং:
কাশ্মীরে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত, পাইলট নিহত পদত্যাগ করলেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী দিনাজপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় চাচা ভাতিজাসহ নিহত ৩

বুধবার   ২৭ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ১৪ ১৪২৭,   ১২ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সর্বশেষ:
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু দেবহাটায় একই পরিবারের ৫ জনকে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় আটক ১ ফেব্রুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহের মধ্যে খুলবে সরকারি প্রাথমিক
৭৫

উইঘুর মুসলমানদের প্রত্যেক জুমাবার জোর করে শুয়োর খাওয়ায় চীন

প্রকাশিত: ৪ ডিসেম্বর ২০২০  

সংখ্যালঘু মুসলিম উইঘুর নারী সায়রাতুল সৌতবায়। চীনের পশ্চিমাঞ্চলীয় জিয়ানজিয়ান প্রদেশে তথাকথিত পুনর্শিক্ষণ শিবির থেকে দুই বছর আগে ছাড়া পেয়েছেন। আটককালে তার বিরুদ্ধে চালানো সহিংসতা, অপদস্ত-অপমানের দুঃস্বপ্ন এখনও তাড়া করে বেড়ায় দুই সন্তানের এ জননীকে।

বর্তমানে সুইডেনে বসবাস করছেন তিনি। সম্প্রতি তার একটি বই প্রকাশ হয়েছে। যাতে তার অগ্নিপরীক্ষার বিস্তারিত উঠে এসেছে। তুলে ধরা হয়েছে, কাছ থেকে দেখা নির্যাতন, যৌন নিপীড়ন, জোরপূর্বক বন্ধ্যাকরণসহ নানাধরনের নৃশংসতার বর্ণনা।

 

সম্প্রতি আল জাজিরাকে দেওয়া সাক্ষাতকারে উইঘুর মুসলমানদের বিরুদ্ধে চালানো চীনা সরকারের নির্মমতা বিশেষভাবে উত্থাপন করেন তিনি। উঠে আসে ইসলামে কঠোরভাবে নিষিদ্ধ শুয়োরের মাংস খেতে বাধ্য করা হয় উইঘুর মুসলমানদের। সৌতবায় বলেন, প্রতি শুক্রবার আমাদের জোরপূর্বক শুয়োরের মাংস খেতে বাধ্য করা হতো। তারা সচেতনভাবে মুসলমানদের কাছে অতি এ পবিত্র দিনটিকে বেছে নিয়েছে শুয়োরের মাংস খাওয়ানোর জন্য। যদি আপনি শুয়োরের মাংস প্রত্যাখ্যান করেন, আপনাকে কঠোর শাস্তি পেতে হবে।

‘এই কাজটি করা হতো আটক উইঘুররা যাতে মুসলমান হওয়ার কারণে অপমানবোধ করে, নিজেকে অপরাধী মনে করে। শুয়োরের মাংস খাওয়ার সময় আমাদের কতটা খারাপ লাগতো, তা ভাষায় প্রকাশ করা কঠিন।’ বলেন তিনি।

 

‘নিজেকে আমার কাছে অপরিচিত একজন মানুষ মনে হতো। চারপাশে ঘুটঘটে অন্ধকার থাকতো সবসময়। সত্যি বলছি, ভয়াবহ এ পরিস্থিতি আমি কখনো মেনে নিতে পারিনি।’


অনলাইন নিউজ পোর্টাল
অনলাইন নিউজ পোর্টাল
এই বিভাগের আরো খবর