ব্রেকিং:
সংরক্ষিত নারী আসনের ভোট ৪ মার্চ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নির্বাচন উপলক্ষে ১৮ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন.

মঙ্গলবার   ১৫ অক্টোবর ২০১৯   আশ্বিন ২৯ ১৪২৬  

সর্বশেষ:
সংরক্ষিত নারী আসনের ভোট ৪ মার্চ ওয়েজবোর্ডের বিষয়টিকে আমরা বিশেষভাবে গুরুত্ব দিচ্ছি
১৩৯

দুই কি.মি.পথ ঘুরতে হয় পাঁচ কি.মি

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২৫ জানুয়ারি ২০১৯  


ফটিকছড়িতে বোচন আলী সড়কটি পাকাকরণ এবং একটি কালভার্ট পুনঃনির্মাণ না হওয়ায় চরম দুর্ভোগের মধ্যে দিয়ে মাত্র দুই কিলো মিটারের পথ পাঁচ কি.মি. ঘুরে যাতায়াত করছে এলাকাবাসী।

উপজেলার খিরাম নানুপুর ইউনিয়ন থেকে আলাদা ইউনিয়ন হয়েছে প্রায় এক বছর আগে। কিন্তু এখনও নির্বাচন না হওয়ায় সেখানে কার্যত কোন অভিভাবক নেই।

সরেজমিনে দেখা যায়, মধ্যম খিরামের অন্তত ১০ হাজার মানুষ দৈনন্দিন যাতায়াত করে বোচন আলী সড়ক প্রকাশ মধ্যের রাস্তা দিয়ে। যার আয়তন প্রায় তিন কি.মি. দৈর্ঘ্য। ২০০৭ সালে তত্বাবধায়ক সরকারের আমলে সড়কটিতে মাটির কাজ করা হয়। আর ২০১৬ সালে চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের বরাদ্ধের মাধ্যমে এক কি.মি. রাস্তার ব্রিক সলিন করা হয়। বাকি দু’ কি.মি. রাস্তা সম্পূর্ণ মাটির রয়ে গেছে। গত বর্ষায় মরার ওপর খাড়ার ঘায়ের মত ওই সড়কের ওপর নির্মিত কালভার্টটিও ভেঙ্গে যায়। ফলে রাস্তাটি দিয়ে যান চলাচল বন্ধ হয়ে আছে দীর্ঘদিন ধরে। সড়কটি সংস্কারর হলেই নানুপুরের সাথে মধ্যম খিরামের দূরত্বও কমে যাবে অন্তত পাঁচ কি.মি।   লাঘব হবে মধ্যম খিরামবাসীর দুর্ভোগ।

এলাকাবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন,  খিরামবাসী হল অভিভাবকশূন্য। স্বাধীনতার পর থেকে খিরামের মূল সড়ক নানুপুর-খিরাম সড়কটিই পাকাকরণের দাবি বাস্তবায়ন করতে পারিনি। সেখানে এ রাস্তাটি বাস্তবায়ন করবে কে?
 স্থানীয় সংবাদকর্মী শাহনেওয়াজ নাজিম বলেন, মধ্যম সড়কের একমাত্র কালভার্টটি পুনঃনির্মাণ করে রাস্তাটির বাকি দু’ কি.মি. সড়ক ব্রিক সলিন করা হলে ওই এলাকার অন্তত দশ হাজার মানুষের চলাচল সুগম হতো এবং নানুপুরের সাথে মধ্যম খিরামের দূরত্ব অন্তত ৫ কি.মি. কমে যেত। এব্যাপারে খিরামের সাবেক ইউপি সদস্য হাজী আব্দুস সালাম বলেন, ইউপি সদস্য থাকাকালীন সড়কটি পাকা করণের জন্য যথেষ্ট তদবির করেছি। কিন্তু সরকারি বরাদ্ধ না পাওয়ায় তা সম্ভব হয়নি।

স্থানীয় বাসিন্দা ও বান্দারবন জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম বলেন, খিরাম একটি কৃষি নির্ভর এলাকা। কিন্তু অনুন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থার কারণে এখানের কৃষকরা তাদের উৎপাদিত পণ্য বিভিন্ন হাটবাজারে নিতে না পারায়, তারা তাদের পণ্য পানির দামে বিক্রি করে দিতে বাধ্য হচ্ছে। এলাকাবাসী দ্রুত সড়কটি সংস্কারের দাবি জানিয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।


অনলাইন নিউজ পোর্টাল
অনলাইন নিউজ পোর্টাল