ব্রেকিং:
সংরক্ষিত নারী আসনের ভোট ৪ মার্চ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নির্বাচন উপলক্ষে ১৮ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন.

মঙ্গলবার   ১৫ অক্টোবর ২০১৯   আশ্বিন ২৯ ১৪২৬  

সর্বশেষ:
সংরক্ষিত নারী আসনের ভোট ৪ মার্চ ওয়েজবোর্ডের বিষয়টিকে আমরা বিশেষভাবে গুরুত্ব দিচ্ছি
১৮১

ধর্মচর্চা অনৈতিক কাজ থেকে বিরত রাখে

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২৬ জানুয়ারি ২০১৯  



অসাম্প্রদায়িক ও ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র বাংলাদেশ। এখানে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও সাম্প্রদায়িকতার জায়গা নেই। ধর্মে মানবকল্যাণ ও নীতি-নৈতিকতার কথা বলা হয়েছে। নিয়মিত ধর্মচর্চা  মানুষকে অনৈতিক কাজ থেকে বিরত রাখে।

শুক্রবার (২৫ জানুয়ারি) নগরীর জেএম সেন হলের সামনে যোগাচার্য পরমহংস স্বামী জ্যোতিশ্বরানন্দ গিরি মহারাজের ১১০তম আবির্ভাব উৎসব উপলক্ষে মহাশোভাযাত্রার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন এসব কথা বলেন।

বেলুন উড়িয়ে শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন আন্তর্জাতিক শঙ্কর মঠ ও মিশনের অধ্যক্ষ তপনানন্দ গিরি মহারাজ। ট্রাকে করে বাদ্য-বাজনার তালে তালে হাজারো ভক্ত পায়ে হেঁটে শোভাযাত্রায় অংশ নেন।

শোভাযাত্রাটি জেএম সেন হল থেকে শুরু করে প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে পুনরায় অনুষ্ঠানস্থলে এসে শেষ হয়।

পরিষদের কার্যকরী সভাপতি দানবীর অদুল চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক লায়ন সন্তোষ কুমার নন্দীর সঞ্চালনায় শোভাযাত্রায় আশীর্বাদক ছিলেন আন্তর্জাতিক শঙ্কর মঠ ও মিশনের অধ্যক্ষ তপনানন্দ গিরি মহারাজ।

বিশেষ অতিথি ছিলেন জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট চন্দন তালুকদার, পটিয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ডা. তিমির বরণ চৌধুরী ও জামালখান ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন। স্বাগত বক্তব্য দেন শোভাযাত্রা উপকমিটির আহ্বায়ক অজিত কুমার শীল।

বক্তব্য দেন প্রফেসর কেশব কুমার চৌধুরী, অনিতা দত্ত, সুলাল চৌধুরী, সমীর পাল, ইঞ্জিনিয়ার সুবল চন্দ্র শীল, অজিত কুমার শীল, মুক্তিযোদ্ধা রঞ্জিত মল্লিক, ইঞ্জিনিয়ার অমল কান্তি চৌধুরী, সাংবাদিক রনজিত কুমার শীল, দিলীপ শীল, অধ্যাপক অঞ্জন কুমার দাশ, রনধীর ঘোষ রায়, বাসুদেব দাশ, কাজল পাল, মিন্টু পাল লিটু,  লিটন শীল, আশীষ পাল, মিন্টু পাল, ইঞ্জিনিয়ার প্রদীপ শীল, সুজিত বরণ ধর প্রমুখ।

দুপুর ১২টায় শুরু হয় বিশ্বশান্তি গীতাযজ্ঞ, মঙ্গলারতি ও হরি ওঁ কীর্তন। গীতাযজ্ঞে অংশ নেন আন্তর্জাতিক শঙ্কর মঠ ও মিশনের অধ্যক্ষ তপনানন্দ গিরি মহারাজসহ মঠের অন্যান্য মহারাজ ও ব্রহ্মচারীরা। এ ছাড়া জ্যোতিশ্বরানন্দ গিরি মহারাজের ১১০তম আবির্ভাব উপলক্ষে কর্মসূচির মধ্যে ছিল-গুরুপূজা, মঙ্গলপ্রদীপ প্রজ্বালন, গীতা পাঠ প্রতিযোগিতা, বেদ পাঠ, মাতৃসম্মেলন, প্রয়াত সারদাচরণ স্মৃতি ছাত্রবৃত্তি প্রদান, সেলাই মেশিন বিতরণ, বৈদিক নৃত্যনাট্য, ধর্মীয় সঙ্গীতাঞ্জলি ও দুপুর-রাতে প্রসাদ বিতরণ।


অনলাইন নিউজ পোর্টাল
অনলাইন নিউজ পোর্টাল
এই বিভাগের আরো খবর