সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, আশ্বিন ১১ ১৪২৯, ২৯ সফর ১৪৪৪

খেলা

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি থেকে মুশফিকের অবসর

 প্রকাশিত: ২২:০৩, ৪ সেপ্টেম্বর ২০২২

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি থেকে মুশফিকের অবসর

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষনা দিয়েছেন  বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম।সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ খবর নিজেই জানিয়েছেন ৩৫ বছর বয়সী মুশফিক। 

নিজের ভেরিফাইড পেইজে এক স্ট্যাটাসে আজ মুশফিক লিখেন, ‘সবাইকে সালাম এবং শুভেচ্ছা। দীর্ঘ ক্রিকেট ক্যারিয়ারের যাত্রায় আমি আপনাদের সবাইকে পাশে পেয়েছি। ভালো এবং খারাপ দুই সময়েই আপনাদের অকুন্ঠ সমর্থন আমাকে প্রেরণা যুগিয়েছে। টি টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ার থেকে আজ আমি অবসর নিচ্ছি।’

মুশফিক আরও লিখেন, ‘তবে, বাংলাদেশের হয়ে টেস্ট এবং ওয়ানডে খেলা চালিয়ে যাবো। আশা করছি এই দুই ফরম্যাটে আমি  দেশের জন্য আরো কিছু  বয়ে নিয়ে আসতে পারব। টি-টোয়েন্টি ফর্মেটে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগসহ (বিপিএল)  অন্যান্য ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে আমি আমার খেলা চালিয়ে যাবো।’

আলহামদুল্লিাহ। সবার নিকট কৃতজ্ঞতা। ধন্যবাদ। আল্লাহ হাফেজ।’

২০০৬ সালের ২৮ নভেম্বরে খুলনায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি অভিষেক হয় মুশফিকের। দেশের তৃতীয় ক্রিকেটার হিসেবে ১শ ম্যাচ খেলেছেন তিনি। ৬টি হাফ-সেঞ্চুরিতে ১৯ দশমিক ৪৮ গড়ে ১৫০০ রান করেছেন মুশফিক। স্ট্রাইক রেট ১১৫ দশমিক ০৩। 

মুশফিকের টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের সেরা ইনিংস অপরাজিত ৭২ রান। দু’বার খেলেছেন অপরাজিত ৭২ রানের ইনিংস। ২০১৮ সালের মার্চে নিদাহাস ট্রফিতে শ্রীলংকার বিপক্ষে ৩৫ বলে ৫টি চার ও ৪টি ছক্কায় অপরাজিত ৭২ রান করেন মুশফিক। তার ব্যাটিং নৈপুন্যে ঐ ম্যাচে ৫ উইকেটে জিতেছিলো বাংলাদেশ। এছাড়াও ঐ টুর্নামেন্টে ভারতের বিপক্ষে ৫৫ বলে ৮টি চার ও ১টি ছক্কায় অপরাজিত ৭২ রান করেছিলেন মুশি। তবে ঐ ম্যাচে ১৭ রানে হেরে যায় বাংলাদেশ। 

উইকেটের পেছনে ৮২ ইনিংসে মুশফিকের  ডিসমিসাল ৬২ডঁ। এরমধ্যে ৩২টি ক্যাচ ও ৩০টি স্টাম্পিং।

এছাড়াও ২০১১ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়কত্ব করেছেন মুশফিক। তার নেতৃত্বে ২৩ ম্যাচে ৮টি জয়, ১৪টি হার ও ১টি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়।  

অভিষেকের পর ২০১৮ সালেই সবচেয়ে বেশি রান করেছেন মুশফিক। ১৬ ইনিংসে ৩টি হাফ-সেঞ্চুরিতে ৩৯৭ রান করেন তিনি। গত কয়েক বছর ধরে এই ফরম্যাটে ব্যাট হাতে সুবিধা করতে পারছিলেন না মুশফিক। চলমান এশিয়া কাপে গ্রুপ পর্বে দুই ম্যাচে আফগানিস্তান ও শ্রীলংকার বিপক্ষে যথাক্রমে ১ ও ৪ রান করেন তিনি। 

অধিনায়ক হিসেবে ২৩ ম্যাচের ১৯ ইনিংসে ১টি হাফ-সেঞ্চুরিতে ৪১৮ রান করেন মুশফিক। আর শুধুমাত্র ব্যাটার হিসেবে ৭৯ ম্যাচের ৭৪ ইনিংসে ৫টি হাফ-সেঞ্চুরিতে ১০৮২ রান করেন তিনি। 

দেশের হয়ে এখন পর্যন্ত ৮২ টেস্টে ৫২৩৫ রান ও ২৩৬ ওয়ানডেতে ৬৭৭৪ রান করেছেন মুশফিক। 

মন্তব্য করুন: