মঙ্গলবার ২৪ মে ২০২২, জ্যৈষ্ঠ ১০ ১৪২৯, ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

ইসলাম

একটি ভিত্তিহীন কথা হাশরের দিন আল্লাহর ক্রোধ দূর করতে আবু বকর রা.-এর আমলনামা পেশ করা

 প্রকাশিত: ১৪:৫৫, ১১ এপ্রিল ২০২২

একটি ভিত্তিহীন কথা হাশরের দিন আল্লাহর ক্রোধ দূর করতে আবু বকর রা.-এর আমলনামা পেশ করা

কিছু মানুষকে বলতে শোনা যায়, হাশরের কঠিন দিনে যখন সকল মানুষ বিচারের জন্য উপস্থিত হবে তখন আল্লাহ খুব ক্রোধের অবস্থায় থাকবেন। বিচারকার্য শুরু হওয়ার অপেক্ষায় সকল মানুষ পেরেশান অবস্থায় সময় অতিবাহিত করবে। আল্লাহর ক্রোধ দূর করার জন্য একপর্যায়ে নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আবু বকর রা.-এর আমলনামা পেশ করবেন। আমলনামা দেখে আল্লাহ খুশি হবেন এবং তাঁর ক্রোধ দুরিভূত হবে।

এটি একটি ভিত্তিহীন ও বানোয়াট কথা। সহীহ বর্ণনাটি হল, একবার নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম হাশরের ময়দানের ভয়াবহ অবস্থা তুলে ধরেন। সকল মানুষ সেদিন পেরেশান হবে। তারা আদম আ.-এর কাছে যাবে আল্লাহর কাছে সুপারিশ করার জন্য। তারা বলবে-

أَنْتَ أَبُو البَشَرِ، خَلَقَكَ اللهُ بِيَدِهِ، وَنَفَخَ فِيكَ مِنْ رُوحِهِ، وَأَمَرَ المَلاَئِكَةَ فَسَجَدُوا لَكَ، اشْفَعْ لَنَا إِلَى رَبِّكَ، أَلاَ تَرَى إِلَى مَا نَحْنُ فِيهِ، أَلاَ تَرَى إِلَى مَا قَدْ بَلَغَنَا؟ فَيَقُولُ آدَمُ: إِنّ رَبِّي قَدْ غَضِبَ اليَوْمَ غَضَبًا لَمْ يَغْضَبْ قَبْلَهُ مِثْلَهُ، وَلَنْ يَغْضَبَ بَعْدَهُ مِثْلَهُ.

আপনি মানবজাতির পিতা। আল্লাহ নিজ হাতে আপনাকে সৃষ্টি করেছেন এবং আপনার মাঝে রূহ ফুঁকে দিয়েছেন। ফিরিশতাদের নির্দেশ দিয়েছেন আপনাকে সিজদা করতে; তারা আপনাকে সিজদা করেছে। আপনার রবের কাছে আমাদের জন্য সুপারিশ করুন। আপনি তো দেখতেই পাচ্ছেন আমরা কী পেরেশানীর অবস্থায় রয়েছি!

তখন আদম আ. বলবেন, আমার রব আজ এমন ক্রোধের অবস্থায় আছেন- এমন ক্রোধ আর কখনো হয়নি এবং পরবতীর্তেও কখনো হবে না।... (একথা বলে তিনি সুপারিশ করতে অপারগতা প্রকাশ করবেন)।

এরপর তারা নূহ আ.-এর কাছে যাবে। তিনিও অপারগতা প্রকাশ করবেন। (এভাবে কয়েকজন নবীর কাছে যাবে) ...একপর্যায়ে তারা নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর কাছে যাবে। তারা বলবে-

হে মুহাম্মাদ! আপনি আল্লাহর রাসূল ও খাতামুল আম্বিয়া। আল্লাহ আপনার পূর্ববতীর্ ও পরবতীর্ ত্রুটিসমূহ মার্জনা করে দিয়েছেন। আপনার রবের কাছে আমাদের জন্য সুপারিশ করুন। আপনি তো দেখতেই পাচ্ছেন আমরা কী পেরেশানীর অবস্থায় রয়েছি!

নবীজী বলেন-

فَأَنْطَلِقُ فَآتِي تَحْتَ العَرْشِ، فَأَقَعُ سَاجِدًا لِرَبِّي عَزّ وَجَلّ، ...، ثُمّ يُقَالُ: يَا مُحَمّدُ ارْفَعْ رَأْسَكَ سَلْ تُعْطَهْ، وَاشْفَعْ تُشَفّعْ فَأَرْفَعُ رَأْسِي.

তখন আমি আরশের কাছে যাব এবং সিজদায় লুটিয়ে পড়ব। তখন আল্লাহ তাআলা তাঁর হামদ ও ছানা তথা প্রশংসা ও স্তুতি জ্ঞাপনের এমন সুন্দর ও উত্তম ভাষা আমার সামনে উন্মোচন করবেন, যা আমার পূর্বে আর কারো সামনে উন্মোচিত হয়নি।

তারপর বলা হবে, হে মুহাম্মাদ! আপনি মাথা ওঠান। আপনি চান, আপনার চাওয়া কবুল করা হবে। আপনি সুপারিশ করুন, আপনার সুপারিশ গ্রহণ করা হবে।... (দ্র. সহীহ বুখারী, হাদীস ৪৭১২)

এই সহীহ বর্ণনাটির সাথে আবু বকর রা.-এর বিষয়টি যুক্ত করে দেওয়া হয়েছে; যার কোনো ভিত্তি নেই। আল্লাহ তাআলা আমাদের এজাতীয় বানোয়াট কথা বলা থেকে বিরত থাকার তাওফীক দান করুন।

মন্তব্য করুন: