ব্রেকিং:
কাশ্মীরে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত, পাইলট নিহত পদত্যাগ করলেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী দিনাজপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় চাচা ভাতিজাসহ নিহত ৩

মঙ্গলবার   ২৬ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ১৩ ১৪২৭,   ১১ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সর্বশেষ:
ভারত দ্রুততম সময়ে বাংলাদেশকে ভ্যাকসিন দিতে অঙ্গীকারাবদ্ধ প্রতিবন্ধীদের ভাতার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ৩ ইউপি সদস্য বরখাস্ত মোংলা-রূপপুর নৌরুট খননে ৬৯ শতাংশ ব্যয় বাড়ানোর প্রস্তাব
৪৯

ভেঙে যাবে ইংল্যান্ড? এবার দুই কারণে স্বাধীনতা চায় স্কটল্যান্ড

প্রকাশিত: ২৮ নভেম্বর ২০২০  

ইংল্যান্ডের অধীনে আর থাকতে চাচ্ছে না স্কটল্যান্ড। দেশটির নাগরিকদের মাঝে নতুন করে স্বাধীতার দাবি মাথাচাড়া দিয়েছে।  বর্তমানে ব্রিটেনের স্বায়ত্তশাসিত রাজ্যটির ৫১ থেকে ৫৯ শতাংশ মানুষই স্বাধীন স্কটল্যান্ড দেখতে চান।

২০১৪ সালে অনুষ্ঠিত এক গণভোটে অবশ্য ৫৫-৪৫ শতাংশ ভোটে স্বাধীনতার দাবি প্রত্যাখ্যান করেছিল স্কটিশরা। সর্বশেষ ১৪টি জরিপের ফল বলছে, বেশিরভাগ স্কটিশের মনোভাবে পরিবর্তন এসেছে। কারণ, এর আগে কখনও এত বেশি মানুষ স্কটল্যান্ডের স্বাধীনতা চাননি। 

স্কটল্যান্ডের ফার্স্ট মিনিস্টার নিকোলা স্টারজিওনের বক্তব্যেও উঠে এসেছে বিষয়টি। শনিবার তিনি বলেন, এর আগে কখনও ‘স্কটল্যান্ডের স্বাধীনতার বিষয়ে এত বেশি নিশ্চিত তিনি ছিলেন না।’ খবর রয়টার্স।

২০১৪ সালে প্রত্যাখ্যান করলেও বর্তমানে অনেক বেশি মানুষের ব্রিটেনের সঙ্গে যুক্ত না থেকে স্বাধীনতা চাওয়ার কারণ হল- ব্রেক্সিট তথা ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে যাওয়া এবং ব্রিটেনের করোনাভাইরাস মোকাবেলার পদ্ধতি পছন্দ না হওয়া। এ কারণে আবারও গণভোট আয়োজনে করে ব্রিটেন থেকে বেরিয়ে যেতে চায় স্কটল্যান্ড। মূলত, মদ ও তেলশিল্পসহ নিজেদের উপার্জনে আরও উন্নত হতে পারবে বলে মনে করে স্কটিশরা। সে ধারণা থেকেই বিভিন্ন সময় স্বাধীনতার প্রশ্ন সামনে আনা হয়েছে।

সর্বশেষ ২০১৪ সালে গণভোট দেয়া হয়। তাতে স্বাধীনতার দাবি প্রত্যাখ্যাত হলেও স্বাধীনতার পক্ষে ভোট পড়ে ৪৫ শতাংশ। এর পর থেকে ব্রেক্সিট ইস্যুতে স্কটিশরা ইইউতে থেকে যাওয়ার পক্ষে। কিন্তু ব্রেক্সিট গণভোটে পাস হওয়ার পর থেকে মানুষের মধ্যে পরিবর্তন আসতে থাকে। 


অনলাইন নিউজ পোর্টাল
অনলাইন নিউজ পোর্টাল
এই বিভাগের আরো খবর