ব্রেকিং:
সংরক্ষিত নারী আসনের ভোট ৪ মার্চ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নির্বাচন উপলক্ষে ১৮ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন.

শনিবার   ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ১০ ১৪২৬  

সর্বশেষ:
সংরক্ষিত নারী আসনের ভোট ৪ মার্চ ওয়েজবোর্ডের বিষয়টিকে আমরা বিশেষভাবে গুরুত্ব দিচ্ছি
১৬৫৭

ব্যারিস্টার নওফেলের প্রশ্নবানে জর্জরিত সুজনের বদিউল আলম

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ৬ ডিসেম্বর ২০১৮  


সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) নামের সংগঠনটি বর্তমানে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র হিসাবে কাজ করছে অভিযোগ এনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন; সুশীল সমাজ নিজেদের জাতির বিবেক দাবী করে কিভাবে আদালতে দন্ডিত ও দেশ পলাতক আসামী তারেক রহমানের রাজনৈতিক দল বিএনপিকে প্রমোট করছেন? তারেক রহমান লন্ডনে বসে বসে বিএনপির মনোনয়নের জন্য সাক্ষাৎকার গ্রহণ করলেও তথাকথিত সুশিল সমাজের কারো বক্তব্য আমরা দেখিনা।

বিএনপির মতো একটি দল এতগুলো ঋণ খেলাপির কাছে কেন মনোনয়ন পত্র বিক্রি করলো তা নিয়ে তথাকথিত সুশীল সমাজের কোন বক্তব্য নেই উল্লেখ করে নওফেল বলেন- তারা সুশাসনের কথা বলেন, অথচ ঋণ খেলাপি, বিল খেলাপিদের বিপক্ষে নিরব থাকেন।

বুধবার রাতে একটি বেসরকারী টিভি চ্যানেল এর লাইভ টক-শো তে এসে ব্যারিস্টার নওফেলের এমন প্রশ্নবানে জর্জরিত হয়ে সুশাসনের জন্য নাগরিক(সুজন)-র সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদারকে বিমর্ষ চোখে তাকিয়ে থাকতে দেখা যায়।

অনুষ্ঠানটিতে এর আগে বদিউল আলম মজুমদারের করা নির্বাচন কমিশনের বিপক্ষে নানা অভিযোগের কড়া জবাব দিয়ে ব্যারিস্টার নওফেল বলেন; তিনি যেভাবে তথ্য প্রমাণ ছাড়া ঋণ খেলাপি, বিল খেলাপিদের পক্ষ নিয়ে একটি সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানকে(নির্বাচন কমিশন) আক্রমন করে গণমাধ্যমে বক্তব্য দিচ্ছেন তা বিএনপি জামাত শাসন আমলে করতে পারতেন কিনা সে প্রশ্নটা আমি করতে চাই।

টক শোতে বিএনপি নিজেদের প্রার্থীদের মনোনয়ন বাতিলের জন্য ইসি ও সরকারকে দায়ী করে যে অভিযোগ তুলছে, তা সুপরিকল্পিত উল্লেখ করে নওফেল বলেন বাংলাদেশের ইতিহাসে ৩০০ আসনের জন্য ৮০০ জনকে কখনো মনোনয়ন দেয়া হয়নি। বিএনপি নিজেরা জানতো তাদের এই সকল ব্যক্তি নির্বাচনে অংশগ্রহনে যোগ্য হবেন না। কারণ তাদের অনেকেই ঋণ খেলাপি, বিল খেলাপি এবং পাশাপাশি সুনির্দিষ্ট ভাবে দূর্নীতির দায়ে দন্ডিত ছিলো যা সংবিধান অনুসারে এমনিতেই মনোনয়নের জন্য অযোগ্য। সরকার ও ইসি’র বিপক্ষে অভিযোগ তোলার জন্য ৩০০ আসনে ৮০০ জনকে মনোনয়নের চিঠি দিয়েছিলো দলটি।

উল্লেখ্য ৩০০ আসনের জন্য বিএনপি’র ৪৫৮০ জন প্রার্থী মনোনয়ন সংগ্রহ করেছিলো। দলটি ৩০০ আসনের বিপরীতে ৮০০ জনকে মনোনীত ঘোষণা করে চিঠি দেওয়ার পর অনেকে নির্বাচন কমিশনে যাচাই বাছাইকালে অযোগ্য হিসাবে ঘোষণা আসে।


অনলাইন নিউজ পোর্টাল
অনলাইন নিউজ পোর্টাল
এই বিভাগের আরো খবর